রবিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২২

উব্যর ও মার্ক্স ~ অর্ক রাজপন্ডিত

মার্কস কি কখনো লন্ডনের রাস্তায় উবের চেপেছেন? বা মার্কস চুরুট আনিয়েছেন ফ্লিপকার্টে অর্ডার করে, অথবা এঙ্গেলসকে কোন বই উপহার দিয়েছেন অ্যামাজনে অর্ডার করে? 

তাহলে কিভাবে লিখে ফেলতে পারলেন পিস ওয়েজ (টুকরো মজুরি,  নির্দিষ্ট একটিই কাজের ভিত্তিতে মজুরি)  হল টাইম ওয়েজ (সময় মজুরি)র ই পরিবর্তিত রূপ। আর সময় মজুরি হল শ্রম শক্তির মূল্যের পরিবর্তিত রূপ।

দেড়শো বছরেরও বেশি সময় আগে লেখা ক্যাপিটাল এর প্রথম ভলিউম এর  ২১ নম্বর চ্যাপ্টারে মার্কস ঠিক এই লেখা দিয়েই শুরু করেছেন! পিস ওয়েজ থিওরিতে মার্কস লিখেছেন একই শিল্পে পিস ওয়েজ অর্থাৎ টুকরো মজুরি আর টাইম ওয়েজ বা সময় মজুরি, এই দুই ধরনের মজুরিই মজুরি একই সঙ্গে সমান্তরালে চলতে পারে।


মার্কস উদাহরণ দিয়েছেন লণ্ডনের একটি ঘোড়ার জিনের সরঞ্জাম এর দোকানে দেখা যাবে ব্রিটিশ মজুরদের পিস ওয়েজ দেওয়া হচ্ছে আবার ফরাসি মজুরদের টাইম ওয়েজ দেওয়া হচ্ছে।

'পিস ওয়েজ '  থিওরি নির্মাণে দেড়শো বছর আগে মার্কস লিখে গেছেন ক্যাপিটালে ' পিস ওয়েজ সিস্টেম শ্রমিক শ্রেণীর জন্য নতুন যুগ চিত্রিত করেছে '।

কলকাতার রাস্তায় ধরা যাক নবমীর রাতে উবের এর চড়া চাহিদা,ভাড়া বেশি। উবের চালক ধরা যাক, তাঁর মালিক এর থেকে ভাড়া নেওয়া গাড়ি,  তিনি দেখলেন যে এই বর্ধিত উবের রাইড এর চাহিদা ও বর্ধিত ভাড়ার কারনে তিনি কমিশন ও খানিক বাড়তি পাবেন, টানা সারা রাত গাড়ি চালালেন বাড়তি আয় এর জন্য।

এই প্রবনতা নতুন নয়, আজ যা দেখছি দেড়শো বছরেরও বেশি আগে লিখে গেছেন মার্কস "পিস ওয়েজ" থিওরিতে। মার্কস লিখছেন, পিস ওয়েজ ওয়ার্কারদের প্রবনতা হল অতিরিক্ত কাজ করা, অতিরিক্ত সময় কাজ করা, যাতে তারা বাড়তি মজুরি পেতে পারে।

উবের, আমাজন, ফ্লিপকার্ট এর মত ড্রাইভার,ডেলিভারি বয় নির্দিষ্ট ভাবে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম এ গিগ ওয়ার্ক অর্থাৎ নির্দিষ্ট কাজের জন্য নির্দিষ্ট মজুরির যে অর্থনীতি,গিগ ইকোনমি বুঝতে হলে, অ্যাপ শ্রমিকদের দুর্দশা,বঞ্চনা বুঝতে হলে মার্কস এর " পিস ওয়েজ থিওরি" র আলোয় বুঝতে হবে।

গিগ অর্থনীতির মূলত তিনটি বৈশিষ্ট্য দেখা যায়। প্রথমত, শ্রমিকরা যে টুকরো মজুরি " পিস ওয়েজ" পান, তা ঠিক হয় তাঁর কাজের সংখ্যার ওপরে, যেমন একজন উবের চালক দিনে কতবার রাইড চালালেন। দ্বিতীয়ত, গ্রাহকদের কাছে থাকে পণ্য ও পরিষেবা কেনার নানান সুযোগ, বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম থেকে তিনি পছন্দ করতে পারেন। তৃতীয়ত, পণ্য বা পরিষেবার উৎপাদনের সঙ্গে এই ধরনের অ্যাপ কোম্পানিগুলো যুক্ত নয়, তারা শুধু মাত্র বাংলা ভাষায় দালালির কাজ করে।

যেমন আমাজন ময়দা তৈরি করে না বা বই ছাপায় না বা মোগলাই পরোটা তৈরি করে না, সে শুধু মাত্র মোগলাই বা বই বা ময়দা গ্রাহকের কাছে পৌঁছনোর জন্য একজন মজুর নিয়োগ করে দালালির কাজ করে।

ক্যাপিটালিজম সব সময়ই শ্রমিককে বাড়তি খাটিয়ে তার অতিরিক্ত মুনাফা অর্জন করে। গিগ এর ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম নয়, ধরা যাক উবের চালককে রাইড পিছু উবের ৫০ শতাংশ কমিশন দেয়, এর অর্থ হল বাকি ৫০ শতাংশ এর কোন মজুরি ই সে পায় না। কেউ যদি দিনে বারো ঘণ্টা গাড়ি চালায় কমিশন বাবদ তার মোট শ্রম সময়ের অর্ধেক সে পায়, তাই দিয়েই সে জ্বালানি ভরে, গাড়ি সারায়,এসির গ্যাস ভরে, পরিবারের যাবতীয় খরচ চালায় ইত্যাদি ইত্যাদি।

এবার একটা অদ্ভুত মজা মানে একেবারে সাংঘাতিক বিভৎস মজা আছে! 

আপনি একজন আদপে শ্রমিক, একটু ভালো মাইনের শ্রমিক, হয়তো আপনি গাড়ি ফ্ল্যাট ও হাঁকাতে পারেন এবারে আপনি ভাবতে শুরু করলেন আপনি 'মিডল ক্লাশ' বরং আপনার নিজেকে ভাবা উচিত ছিল, দেখা উচিত ছিল ' মিডল ইনকাম ওয়ার্কিং ক্লাশ' হিসেবে। 

আপনি একজন ঘোষিত বামপন্থী, লেবার - ক্যাপিটাল দ্বন্দ্বে আপনি বিশ্বাস রাখেন, আপনি চান মজুরি দাসত্বের অবসান হোক। কি মজা দেখুন সেই আপনি উবরে এসি চলেনি, ড্রাইভার ফোন ধরেনি,গাড়িতে সিগারেট খেতে দেয়নি, জোমাটোর ছেলেটা চিকেন রোল দেরিতে এনেছে এসব নানাবিধ কারণে দিলেন নেগেটিভ রিভিউ।

এবার মজাটা কোথায়? আপনার রিভিউ এর ওপর তার মজুরিতে, তার আয় এ আক্রমন হচ্ছে। যেটা " পিস ওয়েজ" এ অনিবার্য। মার্কস লিখেছেন " পিস ওয়েজে শ্রমের মান ও মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে সে যে কাজটা করছে সেটা,  সেটা তখনই ভালো হতে পারে যখন পিস প্রাইস অর্থাৎ টুকরো কাজের জন্য পুরো মজুরি দেওয়া হচ্ছে '।

এবার আপনার মত বামপন্থী গ্রাহকের বা ' মিডল ইনকাম ওয়ার্কিং ক্লাশ ' গ্রাহকের  নেগেটিভ রিভিউ কি করলো? উবের চালককে কাজ দিল না, এমন কি তার আই ডি পর্যন্ত ব্লক করে দিল!  মার্কস লিখেছেন " পিস ওয়েজ মজুরি ছাঁটাই বাড়িয়ে তোলেএবং ক্যাপিটালিষ্টদের আরো প্রতারণার  শক্তি যোগায়"।

গিগ এর মত " পিস ওয়েজ" কাজে শ্রমিকদের স্বাভাবিক প্রবনতা থাকে বাড়তি মজুরির জন্য বাড়তি শ্রম দেওয়া। টানা হয়তো কুড়ি ঘণ্টা উবের চালানো, বা সকাল থেকে সন্ধ্যা টানা ডেলিভারি করে যাওয়া। পুঁজিপতিরাও এই সব পিস ওয়ার্ক এর জন্য পিস মজুরি দেওয়ার আগে সারা ক্ষণ মজুরদের তদারকিতে রাখে। কে কখন গাড়ি চালাচ্ছে, কে কটা ডেলিভারী দিল, রাস্তায় বাইকের টায়ার হয়তো পাংচার হল তাই ডেলিভারী দিতে দেরি হল, সবই দেখা যায়, নিয়ন্ত্রণ করা যায় অ্যাপ এর মাধ্যমে, টায়ার পাংচার এর জন্য সারাই ও করতে হবে শ্রমিক কে আবার দেরির জন্য মজুরিতেও কোপ বসবে!

মার্কস লিখেছেন " যেহেতু এই ধরনের কাজ এর মান ও মাত্রা নিয়ন্ত্রন করে এহেন পিস ওয়েজ এর টুকরো কাজ, পুঁজিপতিদের শ্রম এর ওপর তদারকি এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যা অতিরিক্ত অবাঞ্ছিত"।

একই সঙ্গে গিগ অর্থনীতি জন্ম দিচ্ছে পুঁজিবাদের অনিবার্যতায় পরজীবী মুনাফাখোরদের। উৎপাদক আর গ্রাহকদের মধ্যে যেমন পরজীবী দালাল আমাজন ওলা উবের, তেমনি উবের আর চালক এর মধ্যেও জন্ম নিচ্ছে দালালরা যারা উবের চালানোর গাড়ি বা বাইক পর্যন্ত ভাড়ায় ধার দেয়! মার্কস লিখেছেন " পুঁজিপতি ও শ্রমিকদের মাঝে প্যারাসাইটদের প্রবেশ আরো সহজ করে দেয় পিস ওয়েজ, ফলত পুঁজিপতিদের যেমন মুনাফা আরো বাড়ে, শ্রমিকের শোষণ আরও বাড়ে"।

পরজীবী অর্থনীতির গর্ভে জন্ম নেয় পরজীবী ফাঁপা দর্শন, যা আমাদের অবলীলায় শত্রু ভাবতে শেখায় কখনো কখনো উবের ওলা চালকদের, ডেলিভারি বয়দের। 

আমি আপনি শ্রমজীবীদের দার্শনিক অভিধার অংশ, তাই আমাকে আপনাকেই দায়িত্ব নিতে হবে অনিশ্চিত জীবনের এই গিগ ওয়ার্কারদের শোষন চিনিয়ে দেওয়ার, আমিও আপনিও যাতে বুঝতে ভুল না করি আমার আপনার অভিন্ন লড়াইতে কে শত্রু,কে মিত্র। আমাদের একাজ পারতেই হবে, আমি আপনি ইতিহাসের প্রশ্রয় পাওয়া মানুষ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন